০৮:২৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ইউরো বাছাইয়ে স্পেনের টানা চতুর্থ জয়

  • Reporter Name
  • Update Time : ০২:০৩:২৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১১ জুন ২০১৯
  • ২৭৩ Time View

স্পোর্টস ডেস্ক:  ইউরো বাছাইপর্বে জিতেই চলেছে স্পেন। সোমবার রাতে সুইডেনকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে দুবারের ইউরো চ্যাম্পিয়নরা।  একদিন আগেই শেষ হলো উয়েফা নেশন্স কাপের প্রথম আসর। যেখানে নেদারল্যান্ডসকে ১-০ গোলে হারিয়ে প্রথম শিরোপা জিতে নিয়েছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর পর্তুগাল। তবে একদিন পর যেটা হলো, সেটা সত্যিকারের ইউরো লড়াই। যদিও এটা বাছাই পর্ব। আগামী বছরের ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপে কারা খেলবে, এই বাছাই পর্ব থেকেই চূড়ান্ত হবে সেই ১৬টি দল।

আরো পড়ুন :  বিয়ের বাজনা বাজছে নুসরাতের, হলুদ বৃহস্পতিবার

ইউরো বাছাই সোমবার রাতে মাদ্রিদের এস্টাডিও সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে সুইডেনকে স্বাগত জানিয়েছিল স্বাগতিক স্পেন। তবে মাঠের খেলায় ঠিকই সুইডিশদের বিধ্বস্ত করে ছেড়েছে স্প্যানিশরা। ইউরো বাছাইয়ের এই ম্যাচে সুইডেনকে ৩-০ গোলে হারিয়েছে স্পেন। সে সঙ্গে ‘এফ’ গ্রুপে ৪ ম্যাচ থেকে ১২ পয়েন্ট নিয়ে নিরঙ্কুশভাবে শীর্ষে অবস্থান করছে স্প্যানিশরা।

এক বছরে অনেক কিছুই পরিবর্তন হয়েছে স্পেন ফুটবল দলের। গত বছর রাশিয়া বিশ্বকাপের ঠিক আগ মুহূর্তে কোচ কাণ্ডের জের ধরে বিশ্বকাপেও খুব বেশি দুর এগুতে পারেনি লা রোজারা। কিন্তু গত এক বছরে অনেকটাই গুছিয়ে নিয়েছে তারা। যার প্রতিফলন দেখা যাচ্ছে ইউরো বাছাই পর্বের ম্যাচে।

প্রথমার্ধে তো সুইডিসদের জালই খুঁজে পায়নি স্পেন। খেলার ৬৪ মিনিট পর্যন্ত ছিল গোলশূন্য। দুই দলের আক্রমণভাগকেই বারবার দারুণ পরীক্ষা দিতে হয়েছে এবং তারা সফলও। কিন্তু ৬৪ মিনিটে গিয়ে ভুল করে বসে সুইডিস ডিফেন্ডাররা। যার ফলে পেনাল্টি পেয়ে যায় স্পেন।

মূলতঃ ৩-০ গোলে জিতলেও স্পেনের দুটি গোলই এসেছে পেনাল্টি থেকে। সার্জিও রামোস ৬৪ মিনিটে প্রথম পেনাল্টি থেকে গোল করে এগিয়ে দেন স্পেনকে। খেলার ৮৫ মিনিটে দ্বিতীয় পেনাল্টি পেয়ে যায় লা রোজারা। স্পট কিক নিতে আসেন আলভারো মোরাতা। তার শটও জড়িয়ে যায় সুইডেনের জালে। ৮৭ মিনিটে মিকেল ওয়ারজাবাল দুর্দান্ত এক শটে তৃতীয়বারের মত সুইডেনের জালে বল প্রবেশ করান।

ব্যক্তিগত কারণে এই ম্যাচে ডাগ আউটে দাঁড়াতে পারলেন না কোচ লুইস এনরিকে। পরিবর্তে দায়িত্ব পালন করেন সহকারী কোচ রবার্ট মোরেনো। টানা দ্বিতীয় ম্যাচের মত নিয়মিত গোলরক্ষক ডি গিয়াকে বসিয়ে রেখে তিনি মাঠে নামান কেপাকে। শেষ পর্যন্ত দলকে দারুণ ক্ষিপ্রতায় রক্ষা করেছেন তিনি দুই ম্যাচেই।

ম্যাচের পরিসংখ্যান দেখলেও বোঝা যাবে, সুইডিসরা কতটা পিছিয়ে ছিল স্পেনের চেয়ে। ৭৪ ভাগ বল পজেশন ছিল স্পেনের দখলে। ২৬ ভাগ ছিল কেবল সুইডিশদের দখলে। স্পেন গোল মুখে শট নিয়েছে ২৩টি। যার ৭টিই অন টার্গেট শট। বিপরীতে সুইডেন শট নিয়েছে মাত্র ৫টি। অন টার্গেট ১টি।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ইন্টারন্যাশনাল রিলেশনস রিপোর্টার্স ফোরামের শ্রদ্ধা

ইউরো বাছাইয়ে স্পেনের টানা চতুর্থ জয়

Update Time : ০২:০৩:২৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১১ জুন ২০১৯

স্পোর্টস ডেস্ক:  ইউরো বাছাইপর্বে জিতেই চলেছে স্পেন। সোমবার রাতে সুইডেনকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে দুবারের ইউরো চ্যাম্পিয়নরা।  একদিন আগেই শেষ হলো উয়েফা নেশন্স কাপের প্রথম আসর। যেখানে নেদারল্যান্ডসকে ১-০ গোলে হারিয়ে প্রথম শিরোপা জিতে নিয়েছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর পর্তুগাল। তবে একদিন পর যেটা হলো, সেটা সত্যিকারের ইউরো লড়াই। যদিও এটা বাছাই পর্ব। আগামী বছরের ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপে কারা খেলবে, এই বাছাই পর্ব থেকেই চূড়ান্ত হবে সেই ১৬টি দল।

আরো পড়ুন :  বিয়ের বাজনা বাজছে নুসরাতের, হলুদ বৃহস্পতিবার

ইউরো বাছাই সোমবার রাতে মাদ্রিদের এস্টাডিও সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে সুইডেনকে স্বাগত জানিয়েছিল স্বাগতিক স্পেন। তবে মাঠের খেলায় ঠিকই সুইডিশদের বিধ্বস্ত করে ছেড়েছে স্প্যানিশরা। ইউরো বাছাইয়ের এই ম্যাচে সুইডেনকে ৩-০ গোলে হারিয়েছে স্পেন। সে সঙ্গে ‘এফ’ গ্রুপে ৪ ম্যাচ থেকে ১২ পয়েন্ট নিয়ে নিরঙ্কুশভাবে শীর্ষে অবস্থান করছে স্প্যানিশরা।

এক বছরে অনেক কিছুই পরিবর্তন হয়েছে স্পেন ফুটবল দলের। গত বছর রাশিয়া বিশ্বকাপের ঠিক আগ মুহূর্তে কোচ কাণ্ডের জের ধরে বিশ্বকাপেও খুব বেশি দুর এগুতে পারেনি লা রোজারা। কিন্তু গত এক বছরে অনেকটাই গুছিয়ে নিয়েছে তারা। যার প্রতিফলন দেখা যাচ্ছে ইউরো বাছাই পর্বের ম্যাচে।

প্রথমার্ধে তো সুইডিসদের জালই খুঁজে পায়নি স্পেন। খেলার ৬৪ মিনিট পর্যন্ত ছিল গোলশূন্য। দুই দলের আক্রমণভাগকেই বারবার দারুণ পরীক্ষা দিতে হয়েছে এবং তারা সফলও। কিন্তু ৬৪ মিনিটে গিয়ে ভুল করে বসে সুইডিস ডিফেন্ডাররা। যার ফলে পেনাল্টি পেয়ে যায় স্পেন।

মূলতঃ ৩-০ গোলে জিতলেও স্পেনের দুটি গোলই এসেছে পেনাল্টি থেকে। সার্জিও রামোস ৬৪ মিনিটে প্রথম পেনাল্টি থেকে গোল করে এগিয়ে দেন স্পেনকে। খেলার ৮৫ মিনিটে দ্বিতীয় পেনাল্টি পেয়ে যায় লা রোজারা। স্পট কিক নিতে আসেন আলভারো মোরাতা। তার শটও জড়িয়ে যায় সুইডেনের জালে। ৮৭ মিনিটে মিকেল ওয়ারজাবাল দুর্দান্ত এক শটে তৃতীয়বারের মত সুইডেনের জালে বল প্রবেশ করান।

ব্যক্তিগত কারণে এই ম্যাচে ডাগ আউটে দাঁড়াতে পারলেন না কোচ লুইস এনরিকে। পরিবর্তে দায়িত্ব পালন করেন সহকারী কোচ রবার্ট মোরেনো। টানা দ্বিতীয় ম্যাচের মত নিয়মিত গোলরক্ষক ডি গিয়াকে বসিয়ে রেখে তিনি মাঠে নামান কেপাকে। শেষ পর্যন্ত দলকে দারুণ ক্ষিপ্রতায় রক্ষা করেছেন তিনি দুই ম্যাচেই।

ম্যাচের পরিসংখ্যান দেখলেও বোঝা যাবে, সুইডিসরা কতটা পিছিয়ে ছিল স্পেনের চেয়ে। ৭৪ ভাগ বল পজেশন ছিল স্পেনের দখলে। ২৬ ভাগ ছিল কেবল সুইডিশদের দখলে। স্পেন গোল মুখে শট নিয়েছে ২৩টি। যার ৭টিই অন টার্গেট শট। বিপরীতে সুইডেন শট নিয়েছে মাত্র ৫টি। অন টার্গেট ১টি।