১২:১২ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ নভেম্বর ২০২৩, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নিউজিল্যান্ডে হার দিয়ে শুরু বাংলাদেশের

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৭:৪০:১৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৯
  • ২৫২ Time View

স্পোর্টস ডেস্ক :  সংগ্রহটা খুব একটা বড় নয়, মাঝারি মানেরই বলা যায়। এমন পুঁজি নিয়ে লড়াইটা অসম্ভবই। তা ছাড়া কন্ডিশনটাও প্রতিকূলে। তাই নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে হেরে সিরিজ শুরু করেছে বাংলাদেশ। আজ বুধবার নেপিয়ারে অনুষ্ঠিত ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে বাংলাদেশ গড়ে ২৩২ রান। এর জবাবে ব্যাট করতে নেমে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছাতে মোটেও বেগ পেতে হয়নি নিউজিল্যান্ডের। মার্টিন গাপটিলের চমৎকার শতকে মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় স্বাগতিকরা।

জয়ের জন্য ২৩৩ রানের লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নামা নিউজিল্যান্ডের দুই ওপেনার মার্টিন গাপটিল ও হেনরি নিকলস ১০৩ রানের জুটি গড়েন। এ সময় নিকলসকে বোল্ড করে ওপেনিং জুটি ভাঙতে সক্ষম হন মিরাজ। আউট হওয়ার আগে ৮০ বল থেকে ৫টি চারের মারে ৫৪ রান করেন নিকলস। এরপর ২৯তম ওভারের পঞ্চম বলে মাহমুদউল্লাহর বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন কিউই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন (১১)।

তবে অপর ওপেনার মার্টিন গাপটিলের ব্যাটে ঝড় অব্যাহত থাকে। তৃতীয় উইকেটে রস টেলরকে সঙ্গে নিয়ে ৯৬ রানের জুটি গড়ে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন গাপটিল। তিনি ১১৬ বল থেকে ৮টি চার ও চারটি ছক্কার মারে ১১৭ রানের দুর্দান্ত একটি ইনিংস খেলেন। এছাড়া ৪৯ বল থেকে ৪৫ রান করে অপরাজিত থাকেন টেলর।

এর আগে শুরুতে ব্যাট করতে নেমে ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে দলীয় ৫ রানে ট্রেন্ট বোল্টের বলে কট বিহাইন্ড হয়ে যান ওপেনার তামিম ইকবাল। আরেক ওপেনার লিটন দাস ব্যক্তিগত ১ রানে ম্যাট হেনরি বলে বোল্ড হন। স্কোর বোর্ডে দলীয় রান তখন ১৯।ি

তৃতীয় উইকেট জুটিতে চাপ সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন সৌম্য সরকার ও মুশফিকুর রহিম। তবে সেই চেষ্টাও ব্যর্থ হয়। দলীয় ৪২ রানে বোল্টের বলে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন মুশফিক। আস্থার সঙ্গে ব্যাট করতে থাকা সৌম্য সরকারও ক্রিজে টিকতে পারেননি। ২২ বলে ৩০ রান করে সাজ ঘরে ফেরত যান তিনিও। স্কোর বোর্ডে রান সেই ৪২। দলীয় ৭১ রানে ২৯ বলে ১৩ রান করে ফিরেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

রান আউটের ফাঁদে পড়ে দলীয় ৯৪ রানে ফিরেন সাব্বির রহমান (১৩)। দলীয় ১৩১ রানে ২৭ বলে ২৬ রান করে সপ্তম ব্যাটসম্যান আউট হন মিরাজ। এরপর জুটি বাঁধেন মিঠুন ও সাইফ। সবচেয়ে সফল এই জুটি ভাঙে দলীয় ২১৫ রানে। এ সময় ৪১ রান করে আউট হন সাইফ। দলীয় ২২৯ রানে আউট হন মিঠুন। আউট হওয়ার আগে ইনিংস সর্বোচ্চ ৬২ রান করেন তিনি সবশেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন মুস্তাফিজ।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

নিউজিল্যান্ডে হার দিয়ে শুরু বাংলাদেশের

Update Time : ০৭:৪০:১৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৯

স্পোর্টস ডেস্ক :  সংগ্রহটা খুব একটা বড় নয়, মাঝারি মানেরই বলা যায়। এমন পুঁজি নিয়ে লড়াইটা অসম্ভবই। তা ছাড়া কন্ডিশনটাও প্রতিকূলে। তাই নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে হেরে সিরিজ শুরু করেছে বাংলাদেশ। আজ বুধবার নেপিয়ারে অনুষ্ঠিত ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে বাংলাদেশ গড়ে ২৩২ রান। এর জবাবে ব্যাট করতে নেমে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছাতে মোটেও বেগ পেতে হয়নি নিউজিল্যান্ডের। মার্টিন গাপটিলের চমৎকার শতকে মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় স্বাগতিকরা।

জয়ের জন্য ২৩৩ রানের লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নামা নিউজিল্যান্ডের দুই ওপেনার মার্টিন গাপটিল ও হেনরি নিকলস ১০৩ রানের জুটি গড়েন। এ সময় নিকলসকে বোল্ড করে ওপেনিং জুটি ভাঙতে সক্ষম হন মিরাজ। আউট হওয়ার আগে ৮০ বল থেকে ৫টি চারের মারে ৫৪ রান করেন নিকলস। এরপর ২৯তম ওভারের পঞ্চম বলে মাহমুদউল্লাহর বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন কিউই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন (১১)।

তবে অপর ওপেনার মার্টিন গাপটিলের ব্যাটে ঝড় অব্যাহত থাকে। তৃতীয় উইকেটে রস টেলরকে সঙ্গে নিয়ে ৯৬ রানের জুটি গড়ে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন গাপটিল। তিনি ১১৬ বল থেকে ৮টি চার ও চারটি ছক্কার মারে ১১৭ রানের দুর্দান্ত একটি ইনিংস খেলেন। এছাড়া ৪৯ বল থেকে ৪৫ রান করে অপরাজিত থাকেন টেলর।

এর আগে শুরুতে ব্যাট করতে নেমে ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে দলীয় ৫ রানে ট্রেন্ট বোল্টের বলে কট বিহাইন্ড হয়ে যান ওপেনার তামিম ইকবাল। আরেক ওপেনার লিটন দাস ব্যক্তিগত ১ রানে ম্যাট হেনরি বলে বোল্ড হন। স্কোর বোর্ডে দলীয় রান তখন ১৯।ি

তৃতীয় উইকেট জুটিতে চাপ সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন সৌম্য সরকার ও মুশফিকুর রহিম। তবে সেই চেষ্টাও ব্যর্থ হয়। দলীয় ৪২ রানে বোল্টের বলে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন মুশফিক। আস্থার সঙ্গে ব্যাট করতে থাকা সৌম্য সরকারও ক্রিজে টিকতে পারেননি। ২২ বলে ৩০ রান করে সাজ ঘরে ফেরত যান তিনিও। স্কোর বোর্ডে রান সেই ৪২। দলীয় ৭১ রানে ২৯ বলে ১৩ রান করে ফিরেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

রান আউটের ফাঁদে পড়ে দলীয় ৯৪ রানে ফিরেন সাব্বির রহমান (১৩)। দলীয় ১৩১ রানে ২৭ বলে ২৬ রান করে সপ্তম ব্যাটসম্যান আউট হন মিরাজ। এরপর জুটি বাঁধেন মিঠুন ও সাইফ। সবচেয়ে সফল এই জুটি ভাঙে দলীয় ২১৫ রানে। এ সময় ৪১ রান করে আউট হন সাইফ। দলীয় ২২৯ রানে আউট হন মিঠুন। আউট হওয়ার আগে ইনিংস সর্বোচ্চ ৬২ রান করেন তিনি সবশেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন মুস্তাফিজ।