ঢাকা ০৭:১২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম :

জঙ্গিবাদ দমনে বাংলাদেশের পুলিশ এখন রোলমডেল: প্রধানমন্ত্রী

আলোর জগত ডেস্ক :   প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদের আন্তর্জাতিক, আঞ্চলিক ও স্থানীয় চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বাংলাদেশ পুলিশের দক্ষতা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছে। জঙ্গিবাদ দমনে বাংলাদেশ বিশ্বে ‘রোলমডেল’ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে।

আজ সোমবার রাজধানীর রাজারবাগ পুলিশ লাইনসে ‘পুলিশ সপ্তাহ-২০১৯’ উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। সকাল সাড়ে ১০টায় এই অনুষ্ঠানে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস দমনে পুলিশ যেমন উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রেখেছে, তেমনি মাদকনির্মূল ও নিরাপদ সড়ক গড়ে তুলতেও তাদের অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। কোনো নিরীহ মানুষ যেন পুলিশের হাতে হয়রানির শিকার না হয় সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে।

পুলিশের হাতে যেন কোনো নিরীহ মানুষ হয়রানির শিকার না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করতে হবে। পুলিশের প্রত্যেক সদস্যের ওপর অর্পিত দায়িত্ব নিষ্ঠা ও সততার সঙ্গে পালনের মাধ্যমে জনগণের আস্থা অর্জন করে জনবান্ধব পুলিশে পরিণত হবে- এটাই আমার প্রত্যাশা।

সেবার মাধ্যমে দেশের জনগণের আস্থা অর্জন করে জনবান্ধব পুলিশ হিসেবে পরিচিতি লাভ করার জন্য তিনি পুলিশ সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে বার্ষিক কুচকাওয়াজে সালামগ্রহণ, বীরত্বপূর্ণ কাজের জন্য পুলিশ সদস্যদের পদক বিতরণ, নারী পুলিশ কল্যাণ সমিতির স্টল পরিদর্শন, পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে কল্যাণ প্যারেড ও মধ্যাহ্নভোজে অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী।

Tag :
আপলোডকারীর তথ্য

প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে চিকিৎসার চেক হস্তান্ত, সাবেক এম পি নুরুল আমিন রুহুল

জঙ্গিবাদ দমনে বাংলাদেশের পুলিশ এখন রোলমডেল: প্রধানমন্ত্রী

আপডেট টাইম : ০৮:১২:২৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৯

আলোর জগত ডেস্ক :   প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদের আন্তর্জাতিক, আঞ্চলিক ও স্থানীয় চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বাংলাদেশ পুলিশের দক্ষতা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছে। জঙ্গিবাদ দমনে বাংলাদেশ বিশ্বে ‘রোলমডেল’ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে।

আজ সোমবার রাজধানীর রাজারবাগ পুলিশ লাইনসে ‘পুলিশ সপ্তাহ-২০১৯’ উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। সকাল সাড়ে ১০টায় এই অনুষ্ঠানে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস দমনে পুলিশ যেমন উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রেখেছে, তেমনি মাদকনির্মূল ও নিরাপদ সড়ক গড়ে তুলতেও তাদের অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। কোনো নিরীহ মানুষ যেন পুলিশের হাতে হয়রানির শিকার না হয় সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে।

পুলিশের হাতে যেন কোনো নিরীহ মানুষ হয়রানির শিকার না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করতে হবে। পুলিশের প্রত্যেক সদস্যের ওপর অর্পিত দায়িত্ব নিষ্ঠা ও সততার সঙ্গে পালনের মাধ্যমে জনগণের আস্থা অর্জন করে জনবান্ধব পুলিশে পরিণত হবে- এটাই আমার প্রত্যাশা।

সেবার মাধ্যমে দেশের জনগণের আস্থা অর্জন করে জনবান্ধব পুলিশ হিসেবে পরিচিতি লাভ করার জন্য তিনি পুলিশ সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে বার্ষিক কুচকাওয়াজে সালামগ্রহণ, বীরত্বপূর্ণ কাজের জন্য পুলিশ সদস্যদের পদক বিতরণ, নারী পুলিশ কল্যাণ সমিতির স্টল পরিদর্শন, পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে কল্যাণ প্যারেড ও মধ্যাহ্নভোজে অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী।