ঢাকা ১০:০৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম :

নান্দনিক রুপে আবারো ভোটের মাঠে ফিরছেন জননেতা ধনু

অবশেষে জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে আবারো নৌকা নিয়ে নান্দনিক রুপেই ভোটের মাঠে ফিরছেন ময়মনসিংহ ১১ ভালুকার আসনের গণমানুষের প্রিয়নেতা আলহাজ¦ কাজিম উদ্দিন আহম্মেদ ধনু। এর মধ্য দিয়ে একই পদে একাধিকবার জনপ্রতিনিধিত্ব করার স্বাদ গ্রহন করতে যাচ্ছেন পরিশ্রমিক তরুণ এই রাজনীতিবিদ।

১৯৮৫ সাল থেকে বাংলাদেশের প্রাচীন ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগের রাজনীতি দিয়েই নিজেকে আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার পথে হাটতে শুরু করেন তিনি। রাজপথে সক্রিয় ভ‚মিকা রাখার পাশাপাশি সফল নেতৃত্বের ফলে ৯০ এর স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে একজন সফল ছাত্রনেতা হিসেবে তিনি নিজের অবস্থান শক্ত করে তোলেন। ফলে ১৯৯৫ পর্যন্ত ছাত্রলীগের আহবায়ক ও সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন, পরে ২০১৬ সাল পর্যন্ত উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি অথবা সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন কাজিম উদ্দিন আহম্মেদ ধনু ।

এমনি ভাবেই রাজনীতির গন্ডি পেরিয়ে ২০১৭ সালে মল্লিকবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে একজন সফল জনপ্রতিনিধি হিসেবে তার জীবনের গল্পটা শুরু করেন।
২০০৯ সালে ভালুকা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পদে দলের মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে বর্ষীয়ান এক নেতাকে পরাজিত করে স্বতন্ত্র প্রাথী হিসেবে নির্বাচিত হয়ে নিজের জনপ্রিয়তার জানান দেন তিনি নিজেকে সফল একজন জননেতা হিসেবে। অবহেলিত, শোষিত ও ভাগ্য বঞ্চিত ভালুকাবাসীর সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রেখে তিনি খুব অল্প সময়েই হয়ে যান একজন আলোকিত মানুষ, এভাবেই জনপ্রিয়তার ঝুলিটা বেশ বড় হতে থাকে গণমানুষের নেতা কাজিম উদ্দিন ধনু’র।
জনবান্ধব এই রাজনৈতিক নেতার রাজনীতিক জীবনের পথ পরিক্রমায় লাখো মানুষের হৃদয়ের ভালবাসার বদৌলতে ২০১৯ সালের একাদশ সংসদ নির্বাচনে সাবেক সফল প্রতিমন্ত্রী ৫ বারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য ডা. এম আমানউল্লাহকে টপকিয়ে ভালুকায় ক্ষমতাসীন দল বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী নির্বাচিত হলে ভালুকার আপামর জনতার ঢলে রাজপথ কম্পিত হয়ে উঠে নৌকার জয়জয়কার লাখো কন্ঠের ধ্বনিতে।
ভোটের মাঠের হিসেবটাও হয়ে যায় স্মরণকালের সর্বোচ্চ ভোটে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধির খাতায়।

গত ৫ বছর যিনি দিনরাত সংসদ থেকে পাড়া মহল্লায় কেটেছে ভালুকা উন্নয়নের চিন্তায় বিভোর এই রাজনীতিক নেতার যার ফলে শিল্প সম্ভাবনাময়ী ভালুকাকে আজ উন্নয়ন জোয়ারে বাসিয়ে অর্জন করেন ভালুকা উন্নয়ন রুপকারের খেতাব।
আজ আবারো তিনি নৌকার মাঝি ভালুকা আসনে,তাই সবার প্রাণে বাজছে আতœতৃপ্তির পরম চির সুখের সুর। আজ মঙ্গলবার তিনি ফিরবেন নান্দনিক রুপে ভালুকার ভোটের মাঠে তাই পাড়া মহল্লায় বেজে উঠছে প্রিয় নেতাকে বরণের ঢামাডোল আবারো ভালুকার রাজ পথে লাখো লাখো কষ্ঠে কম্পিত নৌকা ও ধনু ভাই নামের স্মরণীয় জয়গান।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে চিকিৎসার চেক হস্তান্ত, সাবেক এম পি নুরুল আমিন রুহুল

নান্দনিক রুপে আবারো ভোটের মাঠে ফিরছেন জননেতা ধনু

আপডেট টাইম : ০৫:৫৩:৪০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ নভেম্বর ২০২৩

অবশেষে জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে আবারো নৌকা নিয়ে নান্দনিক রুপেই ভোটের মাঠে ফিরছেন ময়মনসিংহ ১১ ভালুকার আসনের গণমানুষের প্রিয়নেতা আলহাজ¦ কাজিম উদ্দিন আহম্মেদ ধনু। এর মধ্য দিয়ে একই পদে একাধিকবার জনপ্রতিনিধিত্ব করার স্বাদ গ্রহন করতে যাচ্ছেন পরিশ্রমিক তরুণ এই রাজনীতিবিদ।

১৯৮৫ সাল থেকে বাংলাদেশের প্রাচীন ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগের রাজনীতি দিয়েই নিজেকে আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার পথে হাটতে শুরু করেন তিনি। রাজপথে সক্রিয় ভ‚মিকা রাখার পাশাপাশি সফল নেতৃত্বের ফলে ৯০ এর স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে একজন সফল ছাত্রনেতা হিসেবে তিনি নিজের অবস্থান শক্ত করে তোলেন। ফলে ১৯৯৫ পর্যন্ত ছাত্রলীগের আহবায়ক ও সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন, পরে ২০১৬ সাল পর্যন্ত উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি অথবা সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন কাজিম উদ্দিন আহম্মেদ ধনু ।

এমনি ভাবেই রাজনীতির গন্ডি পেরিয়ে ২০১৭ সালে মল্লিকবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে একজন সফল জনপ্রতিনিধি হিসেবে তার জীবনের গল্পটা শুরু করেন।
২০০৯ সালে ভালুকা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পদে দলের মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে বর্ষীয়ান এক নেতাকে পরাজিত করে স্বতন্ত্র প্রাথী হিসেবে নির্বাচিত হয়ে নিজের জনপ্রিয়তার জানান দেন তিনি নিজেকে সফল একজন জননেতা হিসেবে। অবহেলিত, শোষিত ও ভাগ্য বঞ্চিত ভালুকাবাসীর সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রেখে তিনি খুব অল্প সময়েই হয়ে যান একজন আলোকিত মানুষ, এভাবেই জনপ্রিয়তার ঝুলিটা বেশ বড় হতে থাকে গণমানুষের নেতা কাজিম উদ্দিন ধনু’র।
জনবান্ধব এই রাজনৈতিক নেতার রাজনীতিক জীবনের পথ পরিক্রমায় লাখো মানুষের হৃদয়ের ভালবাসার বদৌলতে ২০১৯ সালের একাদশ সংসদ নির্বাচনে সাবেক সফল প্রতিমন্ত্রী ৫ বারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য ডা. এম আমানউল্লাহকে টপকিয়ে ভালুকায় ক্ষমতাসীন দল বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী নির্বাচিত হলে ভালুকার আপামর জনতার ঢলে রাজপথ কম্পিত হয়ে উঠে নৌকার জয়জয়কার লাখো কন্ঠের ধ্বনিতে।
ভোটের মাঠের হিসেবটাও হয়ে যায় স্মরণকালের সর্বোচ্চ ভোটে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধির খাতায়।

গত ৫ বছর যিনি দিনরাত সংসদ থেকে পাড়া মহল্লায় কেটেছে ভালুকা উন্নয়নের চিন্তায় বিভোর এই রাজনীতিক নেতার যার ফলে শিল্প সম্ভাবনাময়ী ভালুকাকে আজ উন্নয়ন জোয়ারে বাসিয়ে অর্জন করেন ভালুকা উন্নয়ন রুপকারের খেতাব।
আজ আবারো তিনি নৌকার মাঝি ভালুকা আসনে,তাই সবার প্রাণে বাজছে আতœতৃপ্তির পরম চির সুখের সুর। আজ মঙ্গলবার তিনি ফিরবেন নান্দনিক রুপে ভালুকার ভোটের মাঠে তাই পাড়া মহল্লায় বেজে উঠছে প্রিয় নেতাকে বরণের ঢামাডোল আবারো ভালুকার রাজ পথে লাখো লাখো কষ্ঠে কম্পিত নৌকা ও ধনু ভাই নামের স্মরণীয় জয়গান।