ঢাকা ১২:১৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম :

আগাম জামিন নিতে হাইকোর্টে সস্ত্রীক মির্জা আব্বাস

ফাইল ছবি

আলোর জগত ডেস্ক :  রাজধানীর নয়াপল্টনে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি সমর্থকদের সংঘর্ষ ও গাড়ি পোড়ানোর মামলায় জামিন নিতে হাইকোর্টে এসেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস ও তার স্ত্রী মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস। আজ রোববার বিচারপতি মো. রেজাউল হক ও বিচারপতি জাফর আহমদের হাইকোর্ট বেঞ্চে তাদের জামিন বিষয়ে শুনানি হতে পারে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মনোনয়ন ফরম সংগ্রহকে কেন্দ্র করে নয়াপল্টনের সামনের রাস্তা কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়।  একপর্যায়ে ওই সড়ক দিয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। দুপুর ১টার দিকে পুলিশ সদস্যরা গিয়ে বিএনপির নেতাকর্মীদের রাস্তা ছেড়ে দিতে বলেন। এ সময় তাদের সঙ্গে পুলিশ সদস্যদের বাকবিতণ্ডা হয়।

একপর্যায়ে পুলিশ সদস্যরা বিএনপির নেতাকর্মীদের লাঠিপেটা করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। তখন নেতাকর্মীরাও পুলিশের ওপর হামলা চালায়।  শুরু হয় দুই পক্ষের সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া। এ সময় পুলিশের দুটি গাড়ি ভাঙচুর করে আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গাড়ি ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ, রাস্তা অবরোধ, পুলিশকে মারধর ও সরকারি কাজে বাধার অভিযোগ এনে পুলিশ বাদী হয়ে পল্টন থানায় তিনটি মামলা করে।

Tag :
আপলোডকারীর তথ্য

প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে চিকিৎসার চেক হস্তান্ত, সাবেক এম পি নুরুল আমিন রুহুল

আগাম জামিন নিতে হাইকোর্টে সস্ত্রীক মির্জা আব্বাস

আপডেট টাইম : ০৪:০০:২৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮

আলোর জগত ডেস্ক :  রাজধানীর নয়াপল্টনে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি সমর্থকদের সংঘর্ষ ও গাড়ি পোড়ানোর মামলায় জামিন নিতে হাইকোর্টে এসেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস ও তার স্ত্রী মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস। আজ রোববার বিচারপতি মো. রেজাউল হক ও বিচারপতি জাফর আহমদের হাইকোর্ট বেঞ্চে তাদের জামিন বিষয়ে শুনানি হতে পারে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মনোনয়ন ফরম সংগ্রহকে কেন্দ্র করে নয়াপল্টনের সামনের রাস্তা কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়।  একপর্যায়ে ওই সড়ক দিয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। দুপুর ১টার দিকে পুলিশ সদস্যরা গিয়ে বিএনপির নেতাকর্মীদের রাস্তা ছেড়ে দিতে বলেন। এ সময় তাদের সঙ্গে পুলিশ সদস্যদের বাকবিতণ্ডা হয়।

একপর্যায়ে পুলিশ সদস্যরা বিএনপির নেতাকর্মীদের লাঠিপেটা করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। তখন নেতাকর্মীরাও পুলিশের ওপর হামলা চালায়।  শুরু হয় দুই পক্ষের সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া। এ সময় পুলিশের দুটি গাড়ি ভাঙচুর করে আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গাড়ি ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ, রাস্তা অবরোধ, পুলিশকে মারধর ও সরকারি কাজে বাধার অভিযোগ এনে পুলিশ বাদী হয়ে পল্টন থানায় তিনটি মামলা করে।