ঢাকা ১১:১৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম :

ভারতের বিহারের ট্রেন লাইনচ্যুত, নিহত ৬

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :   ভারতের বিহারে দিল্লিগামী একটি ট্রেনের ৯টি বগি লাইনচ্যুত হয়ে ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন অন্তত ১৪ জন। আজ রোববার ভোর ৩টা ৫৮ মিনিটে পাটনা থেকে ৩০ কিলোমিটার দূরে বিহারের হাজিপুরের নিকটে এই দুর্ঘটনাটি ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, উদ্ধার কাজ শুরু হলে মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

টুইটারে দেওয়া এক পোস্টে রেল বিভাগ জানিয়েছে, লাইনচ্যুত বগিগুলো উদ্ধারে অভিযান শুরু করেছে কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি যাত্রীদের উদ্ধার ও ত্রাণ সরবরাহের দিকেও নজর দেওয়া হচ্ছে।

ইতোমধ্যেই পার্শ্ববর্তী সনপুর ও বরুনি থেকে ঘটনাস্থলে মেডিক্যাল টিম পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন ইস্ট সেন্ট্রাল রেলওয়ের মুখপাত্র রাজেশ কুমার।

দুর্ঘটনার সময় দিল্লিগামী ট্রেনটির অধিকাংশ যাত্রী ঘুমিয়ে ছিল বলে জানা গেছে। লাইনচ্যুত বগিগুলোর মধ্যে স্লিপার কোচ, জেনারেল কোচ এবং এসি কোচও রয়েছে। নয় বগিতে মোট শতাধিক যাত্রী ছিল।

স্লিপারে এস ৮, এস ৯, এস ১০ এই তিনটি বগি, একটি জেনারেল বগি, একটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বগি (বি৩) লাইনচ্যু বগিগুলোর মধ্যে রয়েছে বলে জানিয়েছেন পূর্ব রেলওয়ের মুখপাত্র রাজেশ কুমার।

এক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, দিল্লি-বিহার রুটের ট্রেনগুলো অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহন করে। এই ট্রেনে অসংখ্য যাত্রীদেরই রিজার্ভেশনও থাকে না। শুধুমাত্র জেনারেল টিকিট কেটেই অসংখ্য ব্যক্তি ট্রেনে যাতায়াত করেন। এর ফলে রেলমন্ত্রণালয়ের তরফে এই দুর্ঘটনার পর আহত কিংবা মৃত যাত্রীদের পরিচয় খুঁজে পেতেও সমস্যা হচ্ছে।

Tag :
আপলোডকারীর তথ্য

প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে চিকিৎসার চেক হস্তান্ত।

ভারতের বিহারের ট্রেন লাইনচ্যুত, নিহত ৬

আপডেট টাইম : ০৭:০০:৪৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :   ভারতের বিহারে দিল্লিগামী একটি ট্রেনের ৯টি বগি লাইনচ্যুত হয়ে ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন অন্তত ১৪ জন। আজ রোববার ভোর ৩টা ৫৮ মিনিটে পাটনা থেকে ৩০ কিলোমিটার দূরে বিহারের হাজিপুরের নিকটে এই দুর্ঘটনাটি ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, উদ্ধার কাজ শুরু হলে মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

টুইটারে দেওয়া এক পোস্টে রেল বিভাগ জানিয়েছে, লাইনচ্যুত বগিগুলো উদ্ধারে অভিযান শুরু করেছে কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি যাত্রীদের উদ্ধার ও ত্রাণ সরবরাহের দিকেও নজর দেওয়া হচ্ছে।

ইতোমধ্যেই পার্শ্ববর্তী সনপুর ও বরুনি থেকে ঘটনাস্থলে মেডিক্যাল টিম পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন ইস্ট সেন্ট্রাল রেলওয়ের মুখপাত্র রাজেশ কুমার।

দুর্ঘটনার সময় দিল্লিগামী ট্রেনটির অধিকাংশ যাত্রী ঘুমিয়ে ছিল বলে জানা গেছে। লাইনচ্যুত বগিগুলোর মধ্যে স্লিপার কোচ, জেনারেল কোচ এবং এসি কোচও রয়েছে। নয় বগিতে মোট শতাধিক যাত্রী ছিল।

স্লিপারে এস ৮, এস ৯, এস ১০ এই তিনটি বগি, একটি জেনারেল বগি, একটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বগি (বি৩) লাইনচ্যু বগিগুলোর মধ্যে রয়েছে বলে জানিয়েছেন পূর্ব রেলওয়ের মুখপাত্র রাজেশ কুমার।

এক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, দিল্লি-বিহার রুটের ট্রেনগুলো অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহন করে। এই ট্রেনে অসংখ্য যাত্রীদেরই রিজার্ভেশনও থাকে না। শুধুমাত্র জেনারেল টিকিট কেটেই অসংখ্য ব্যক্তি ট্রেনে যাতায়াত করেন। এর ফলে রেলমন্ত্রণালয়ের তরফে এই দুর্ঘটনার পর আহত কিংবা মৃত যাত্রীদের পরিচয় খুঁজে পেতেও সমস্যা হচ্ছে।