ঢাকা ১০:৪৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম :

মৌলভীবাজারের জুড়ীতে নিউ মার্কেটে কেয়ারটেকারের রহস্যজনক মৃত্যু!

মৌলভীবাজারের জুড়ী নিউ মার্কেটে  এক কেয়ারটেকারের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে।

জানা গেছে, হরিরামপুর গ্রামের মৃত রজব আলী (কালা মিয়ার) ছেলে আব্দুস সালাম (৫০) দীর্ঘদিন থেকে জুড়ী  নিউ মার্কেটে কেয়ার টেকার হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

বৃহস্পতিবার  (৭ নভেম্বর) সকাল ৮ টায় বাড়ি থেকে বের হয়ে কর্মস্থলে পৌঁছান। কর্মস্থলে পৌঁছার কিছুক্ষণ পর মার্কেটের দ্বিতীয় তলার অফিস কক্ষে ফ্যানের সাথে সালামের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে ম্যানেজার প্রদীপ দাস  মার্কেটের মালিকদের ঘটনা জানান। খবর পেয়ে মার্কেটের মালিক এম এ  মুজিব মাহবুব ও তার বড় ভাই  জুড়ী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এম এ মোঈদ ফারুক ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। জুড়ী থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যান।

স্বামীর মৃত্যুর খবর পেয়ে  আব্দুস সালামের স্ত্রী   বানু বেগম বার বার মোর্চা যাচ্ছিলেন। বানু বেগম জানান,তার স্বামী  সকালে খাওয়া দাওয়া শেষ  করে বাড়ি থেকে হাসিমুখে বিদায় নিয়ে  কর্মস্থলে জান। কিছুক্ষণ পর তার মৃত্যুর খবর আসে। এ মৃত্যু যেন কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না।

 

আব্দুস সালামের বেয়াই ফজর আলী জানান, খবর পেয়ে তিনি  নিউ মার্কেটের ২য় তলায় অফিস করতে গিয়ে আব্দুস সালামের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পান। এ সময়ের লাশের মুখ দিয়ে রক্ত পড়তে দেখেছেন।

 

আব্দুস সালামের ছেলে শরিফ আহমদ  বলেন, সকালে বাবার হাসি মাখা মুখটা দেখেছি। আমার বাবা আত্মহত্যা করতে পারে না।  বাবাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হতে পারে। যদি কেউ আমার বাবাকে হত্যা করে থাকে আমি ন্যায়বিচার   চাই।

জুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মোশাররফ হোসেন জানান খবর পেয়ে লাশ  উদ্ধার করে  ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে  প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে। মামলাটি তদন্তাধীন আছে

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে চিকিৎসার চেক হস্তান্ত, সাবেক এম পি নুরুল আমিন রুহুল

মৌলভীবাজারের জুড়ীতে নিউ মার্কেটে কেয়ারটেকারের রহস্যজনক মৃত্যু!

আপডেট টাইম : ০১:১২:১১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৮ ডিসেম্বর ২০২৩

মৌলভীবাজারের জুড়ী নিউ মার্কেটে  এক কেয়ারটেকারের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে।

জানা গেছে, হরিরামপুর গ্রামের মৃত রজব আলী (কালা মিয়ার) ছেলে আব্দুস সালাম (৫০) দীর্ঘদিন থেকে জুড়ী  নিউ মার্কেটে কেয়ার টেকার হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

বৃহস্পতিবার  (৭ নভেম্বর) সকাল ৮ টায় বাড়ি থেকে বের হয়ে কর্মস্থলে পৌঁছান। কর্মস্থলে পৌঁছার কিছুক্ষণ পর মার্কেটের দ্বিতীয় তলার অফিস কক্ষে ফ্যানের সাথে সালামের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে ম্যানেজার প্রদীপ দাস  মার্কেটের মালিকদের ঘটনা জানান। খবর পেয়ে মার্কেটের মালিক এম এ  মুজিব মাহবুব ও তার বড় ভাই  জুড়ী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এম এ মোঈদ ফারুক ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। জুড়ী থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যান।

স্বামীর মৃত্যুর খবর পেয়ে  আব্দুস সালামের স্ত্রী   বানু বেগম বার বার মোর্চা যাচ্ছিলেন। বানু বেগম জানান,তার স্বামী  সকালে খাওয়া দাওয়া শেষ  করে বাড়ি থেকে হাসিমুখে বিদায় নিয়ে  কর্মস্থলে জান। কিছুক্ষণ পর তার মৃত্যুর খবর আসে। এ মৃত্যু যেন কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না।

 

আব্দুস সালামের বেয়াই ফজর আলী জানান, খবর পেয়ে তিনি  নিউ মার্কেটের ২য় তলায় অফিস করতে গিয়ে আব্দুস সালামের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পান। এ সময়ের লাশের মুখ দিয়ে রক্ত পড়তে দেখেছেন।

 

আব্দুস সালামের ছেলে শরিফ আহমদ  বলেন, সকালে বাবার হাসি মাখা মুখটা দেখেছি। আমার বাবা আত্মহত্যা করতে পারে না।  বাবাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হতে পারে। যদি কেউ আমার বাবাকে হত্যা করে থাকে আমি ন্যায়বিচার   চাই।

জুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মোশাররফ হোসেন জানান খবর পেয়ে লাশ  উদ্ধার করে  ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে  প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে। মামলাটি তদন্তাধীন আছে