ঢাকা ০৭:৩৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম :

১০ নভেম্বরের মধ্যে সরকারকে পদত্যাগের আল্টিমেটাম

  • অনলাইন ডেস্ক:
  • আপডেট টাইম : ০৬:০৩:৪৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩ নভেম্বর ২০২৩
  • ২৮৪ বার পড়া হয়েছে

শুক্রবার সকাল ১০টা থেকেই সমাবেশস্থলে সমাবেত হন হাজার হাজার নেতাকর্মী।
আগামী ১০ নভেম্বরের মধ্যে আওয়ামী লীগ সরকারকে পদত্যাগ করে আন্দোলনরত রাজনৈতিক দলের সমন্বয়ে সরকার গঠনের দাবি জানিয়েছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ।

শুক্রবার (৩ নভেম্বর) ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আয়োজিত মহাসমাবেশ থেকে এই হুঁশিয়ারি দেন দলটির আমির মুফতি রেজাউল করিম।
এ সময় চার দফা কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

১. ১০ নভেম্বর ২০২৩-এর মধ্যে সরকারকে পদত্যাগ করে এবং জাতীয় সংসদ ভেঙে দিয়ে সব নিবন্ধিত এবং প্রতিনিধিত্বশীল আন্দোলনরত রাজনৈতিক দলের সমন্বয়ে গঠিত জাতীয় সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে হবে।

১৪-১৮ সালের মতো নির্বাচন আর হতে দেওয়া হবে না : রেজাউল করিম
লোকে লোকারণ্য সোহরাওয়ার্দী উদ্যান

২. বিদ্যমান রাজনৈতিক সংকট নিরসনে আগামী ১ সপ্তাহের মধ্যে রাজনৈতিক কারণে কারারুদ্ধ বিএনপিসহ সব শীর্ষ নেতাদের মুক্তি দিয়ে রাষ্ট্রপতিকে সব রাজনৈতিক দলের সঙ্গে জাতীয় সংলাপের উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।

৩. সরকার এসব দাবি মেনে না নিলে, আন্দোলনরত সব বিরোধী দলের সঙ্গে আলোচনা করে পরে কঠোর ও বৃহত্তর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

৪. জনগণের ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠার দাবিতে এবং অবৈধ সরকারের পতনের লক্ষ্যে বিএনপিসহ বিরোধী দল সমূহের সব শান্তিপূর্ণ কর্মসূচীর প্রতি সমর্থন ঘোষণা করছি।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে চিকিৎসার চেক হস্তান্ত, সাবেক এম পি নুরুল আমিন রুহুল

১০ নভেম্বরের মধ্যে সরকারকে পদত্যাগের আল্টিমেটাম

আপডেট টাইম : ০৬:০৩:৪৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩ নভেম্বর ২০২৩

শুক্রবার সকাল ১০টা থেকেই সমাবেশস্থলে সমাবেত হন হাজার হাজার নেতাকর্মী।
আগামী ১০ নভেম্বরের মধ্যে আওয়ামী লীগ সরকারকে পদত্যাগ করে আন্দোলনরত রাজনৈতিক দলের সমন্বয়ে সরকার গঠনের দাবি জানিয়েছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ।

শুক্রবার (৩ নভেম্বর) ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আয়োজিত মহাসমাবেশ থেকে এই হুঁশিয়ারি দেন দলটির আমির মুফতি রেজাউল করিম।
এ সময় চার দফা কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

১. ১০ নভেম্বর ২০২৩-এর মধ্যে সরকারকে পদত্যাগ করে এবং জাতীয় সংসদ ভেঙে দিয়ে সব নিবন্ধিত এবং প্রতিনিধিত্বশীল আন্দোলনরত রাজনৈতিক দলের সমন্বয়ে গঠিত জাতীয় সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে হবে।

১৪-১৮ সালের মতো নির্বাচন আর হতে দেওয়া হবে না : রেজাউল করিম
লোকে লোকারণ্য সোহরাওয়ার্দী উদ্যান

২. বিদ্যমান রাজনৈতিক সংকট নিরসনে আগামী ১ সপ্তাহের মধ্যে রাজনৈতিক কারণে কারারুদ্ধ বিএনপিসহ সব শীর্ষ নেতাদের মুক্তি দিয়ে রাষ্ট্রপতিকে সব রাজনৈতিক দলের সঙ্গে জাতীয় সংলাপের উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।

৩. সরকার এসব দাবি মেনে না নিলে, আন্দোলনরত সব বিরোধী দলের সঙ্গে আলোচনা করে পরে কঠোর ও বৃহত্তর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

৪. জনগণের ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠার দাবিতে এবং অবৈধ সরকারের পতনের লক্ষ্যে বিএনপিসহ বিরোধী দল সমূহের সব শান্তিপূর্ণ কর্মসূচীর প্রতি সমর্থন ঘোষণা করছি।