ঢাকা ০৫:৪৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম :

আলোকচিত্রী শহিদুলের জামিন স্থগিত চায় রাষ্ট্রপক্ষ

ফাইল ছবি

আলোর জগত ডেস্ক :   তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের মামলায় আলোকচিত্রী ড. শহিদুল আলমকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা আবেদন করেছেন। আজ রোববার রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে শহিদুল আলমের জামিন স্থগিত চেয়ে আবেদন করা হয়েছে বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন অ্যাডভোকেট সুফিয়া খাতুন। দুপুরে আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতির আদালতে স্থগিত আবেদনটির ওপর শুনানি হতে পারে।

গত ১৫ নভেম্বর তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনে করা এক মামলায় শহিদুল আলমের জামিন মঞ্জুর করেন হাইকোর্ট। তবে জামিন আদেশের পর অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেছিলেন, রায়ের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করবেন তারা। ১২ আগস্ট তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনের মামলায় শহিদুল আলমকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত। ৫ আগস্ট রাতে রাজধানীর ধানমণ্ডির বাসা থেকে শহিদুলকে আটক করে ডিবি পুলিশ।

মামলায় তার বিরুদ্ধে ফেসবুক ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় সরকারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার এবং শিক্ষার্থীদের আন্দোলন নিয়ে মিথ্যা তথ্য দিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করার অভিযোগ আনা হয়েছে।

Tag :
আপলোডকারীর তথ্য

প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে চিকিৎসার চেক হস্তান্ত, সাবেক এম পি নুরুল আমিন রুহুল

আলোকচিত্রী শহিদুলের জামিন স্থগিত চায় রাষ্ট্রপক্ষ

আপডেট টাইম : ০৬:০০:৪২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮

আলোর জগত ডেস্ক :   তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের মামলায় আলোকচিত্রী ড. শহিদুল আলমকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা আবেদন করেছেন। আজ রোববার রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে শহিদুল আলমের জামিন স্থগিত চেয়ে আবেদন করা হয়েছে বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন অ্যাডভোকেট সুফিয়া খাতুন। দুপুরে আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতির আদালতে স্থগিত আবেদনটির ওপর শুনানি হতে পারে।

গত ১৫ নভেম্বর তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনে করা এক মামলায় শহিদুল আলমের জামিন মঞ্জুর করেন হাইকোর্ট। তবে জামিন আদেশের পর অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেছিলেন, রায়ের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করবেন তারা। ১২ আগস্ট তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনের মামলায় শহিদুল আলমকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত। ৫ আগস্ট রাতে রাজধানীর ধানমণ্ডির বাসা থেকে শহিদুলকে আটক করে ডিবি পুলিশ।

মামলায় তার বিরুদ্ধে ফেসবুক ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় সরকারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার এবং শিক্ষার্থীদের আন্দোলন নিয়ে মিথ্যা তথ্য দিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করার অভিযোগ আনা হয়েছে।