ঢাকা ০২:৫৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪

গুলিশাখালী ইউনিয়নে রাজাকারের ছেলে নৌকায় কেন,তৃণমুলের দাবী

মু,হেলাল আহম্মেদ(রিপন
পটুয়াখালী জেলা প্রতিনিধিঃ
বরগুনা জেলার আমতলী উপজেলার গুলিশাখালী ইউনিয়নে ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট নুরুল ইসলামের বিরুদ্ধে
হাইব্রিড ও রাজাকারের ছেলে নৌকায় কেন। বিষয়টি নিয়ে তৃণমুল আঃলীগের সর্বত্র গুঞ্জন চলছে।
খোজ নিয়ে জানাযায়,নুরুল ইসলাম শরীফ গুলিশাখালী ইনিয়নের মৃত্যু,গহর আলী শরীফের ছেলে তালিকাভুক্ত মহান স্বাধীনতা বিরোধী শান্তি কমিটির ১৩২ নং সদস্য রাজাকার মৃত্যু, মফিজউদ্দীন শরীফের পুত্র নুরুল ইসলাম শরিফ।
সরেজমিন অনুসন্ধানে ও স্থানীয় সাধারন জনগন এবংএকই ইউনিয়নের বর্তমান ৯ নং ওয়ার্ডের মেম্বার কাজী নিজামুল হক দৈনিক বাংলাদেশ কন্ঠ’কে বলেন, মহান স্বাধীনতা যুদ্ধ চলাকালীন সময় চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামের পিতা বিশিষ্ট রাজাকার ছিলেন। তার নেতৃত্বে তৎকালীন সময় লোটপাট, খুন, ধর্ষনসহ স্বাধীনতা রিরোধী নৃশংস অত্যাচার সংঘটিত হয়। স্বাধীনতার এতোটা বৎসর পরেও গুলিশাখালী ইউনিয়নের সাধারণ জনগন আজও ভোগ করতে পারেনি স্বাধীনতা। স্বাধীনতা যুদ্ধে বাবার পরাজয়ের গ্লানি আজও ভুলতে পারেনি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম। নির্যাতন, নিপিড়নসহ মিথ্যা মামলা ও পেটোয়া বাহিনী দিয়ে চালাচ্ছে গোটা ইউনিয়ন, এমনটাই বল্লেন স্থানীয়রা।
 এবিষয়ে বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বরগুনা সদর ১ আসনের সংসদ সদস্য  ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর কাছে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বাংলাদেশ কন্ঠকে
বলেন। তৃণমূল পর্যায়ে এতোটা খবর আমার জানা নেই,তবে তার বাবা রাজাকার ছিলো সেতো রাজাকার নয়। শম্ভু আরো বলেন, আপনারা গণমাধ্যম কর্মীরা সঠিক তথ্য উপাত্ত পেয়ে থাকলে সংবাদ প্রচার করুন।
এব্যাপারে গুলিশাখালী ইউনিয়ন আ’লীগে সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আউয়াল খোকন মৃধার কাছে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মহান স্বাধীনতা যুদ্ধ চলাকালীন সময়ে আমি ছোট ছিলাম তবে স্থানীয় ভাবে লোকমুখে অসংখ্য বার শুনেছি তার বাবা রাজাকার ছিলেন। তাছাড়া নুরুল ইসলামের অনৈতিক কর্মকান্ডের ব্যাপারে জানতে চাইলে আরো বলেন,তার কাছে আমিসহ গোটা ইউনিয়নের
আ’লীগে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের কোন মুল্যায়ন নেই। আওয়ামী লীগের ইউনিয়ন সভাপতি হয়েও বিএনপি ও জামায়েত কর্মীদের নিয়ে নিত্য পথচলা তার।
 সার্বিক বিষয় নিয়ে চেয়ারম্যান এ্যাড.নুরুল ইসলামের কাছে ০১৭১২-৯৪৭৯৯৫) এ মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার ও আমার পরিবারে বিরুদ্ধে একটি কুচক্রী মহল মিথ্যা অপবাদ দেয়ার পায়তারা করছে। আমার বাবা রাজাকার ছিলো না এটা গভীর ষড়যন্ত্র।
Tag :
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

গ্রাম পুলিশ সদস্যকে ধর্ষণের অভিযোগে এক ইউপি চেয়ারম্যান ও সহযোগীর বিরুদ্ধে মামলা

গুলিশাখালী ইউনিয়নে রাজাকারের ছেলে নৌকায় কেন,তৃণমুলের দাবী

আপডেট টাইম : ০৩:০৩:৫৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১
মু,হেলাল আহম্মেদ(রিপন
পটুয়াখালী জেলা প্রতিনিধিঃ
বরগুনা জেলার আমতলী উপজেলার গুলিশাখালী ইউনিয়নে ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট নুরুল ইসলামের বিরুদ্ধে
হাইব্রিড ও রাজাকারের ছেলে নৌকায় কেন। বিষয়টি নিয়ে তৃণমুল আঃলীগের সর্বত্র গুঞ্জন চলছে।
খোজ নিয়ে জানাযায়,নুরুল ইসলাম শরীফ গুলিশাখালী ইনিয়নের মৃত্যু,গহর আলী শরীফের ছেলে তালিকাভুক্ত মহান স্বাধীনতা বিরোধী শান্তি কমিটির ১৩২ নং সদস্য রাজাকার মৃত্যু, মফিজউদ্দীন শরীফের পুত্র নুরুল ইসলাম শরিফ।
সরেজমিন অনুসন্ধানে ও স্থানীয় সাধারন জনগন এবংএকই ইউনিয়নের বর্তমান ৯ নং ওয়ার্ডের মেম্বার কাজী নিজামুল হক দৈনিক বাংলাদেশ কন্ঠ’কে বলেন, মহান স্বাধীনতা যুদ্ধ চলাকালীন সময় চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামের পিতা বিশিষ্ট রাজাকার ছিলেন। তার নেতৃত্বে তৎকালীন সময় লোটপাট, খুন, ধর্ষনসহ স্বাধীনতা রিরোধী নৃশংস অত্যাচার সংঘটিত হয়। স্বাধীনতার এতোটা বৎসর পরেও গুলিশাখালী ইউনিয়নের সাধারণ জনগন আজও ভোগ করতে পারেনি স্বাধীনতা। স্বাধীনতা যুদ্ধে বাবার পরাজয়ের গ্লানি আজও ভুলতে পারেনি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম। নির্যাতন, নিপিড়নসহ মিথ্যা মামলা ও পেটোয়া বাহিনী দিয়ে চালাচ্ছে গোটা ইউনিয়ন, এমনটাই বল্লেন স্থানীয়রা।
 এবিষয়ে বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বরগুনা সদর ১ আসনের সংসদ সদস্য  ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর কাছে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বাংলাদেশ কন্ঠকে
বলেন। তৃণমূল পর্যায়ে এতোটা খবর আমার জানা নেই,তবে তার বাবা রাজাকার ছিলো সেতো রাজাকার নয়। শম্ভু আরো বলেন, আপনারা গণমাধ্যম কর্মীরা সঠিক তথ্য উপাত্ত পেয়ে থাকলে সংবাদ প্রচার করুন।
এব্যাপারে গুলিশাখালী ইউনিয়ন আ’লীগে সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আউয়াল খোকন মৃধার কাছে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মহান স্বাধীনতা যুদ্ধ চলাকালীন সময়ে আমি ছোট ছিলাম তবে স্থানীয় ভাবে লোকমুখে অসংখ্য বার শুনেছি তার বাবা রাজাকার ছিলেন। তাছাড়া নুরুল ইসলামের অনৈতিক কর্মকান্ডের ব্যাপারে জানতে চাইলে আরো বলেন,তার কাছে আমিসহ গোটা ইউনিয়নের
আ’লীগে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের কোন মুল্যায়ন নেই। আওয়ামী লীগের ইউনিয়ন সভাপতি হয়েও বিএনপি ও জামায়েত কর্মীদের নিয়ে নিত্য পথচলা তার।
 সার্বিক বিষয় নিয়ে চেয়ারম্যান এ্যাড.নুরুল ইসলামের কাছে ০১৭১২-৯৪৭৯৯৫) এ মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার ও আমার পরিবারে বিরুদ্ধে একটি কুচক্রী মহল মিথ্যা অপবাদ দেয়ার পায়তারা করছে। আমার বাবা রাজাকার ছিলো না এটা গভীর ষড়যন্ত্র।