>

রবিবার, ০৯ অগাস্ট ২০২০, ০২:৫৬ অপরাহ্ন

ঈদকে ঘিরে নিরাপত্তার চাদরে রাজধানী

ঈদকে ঘিরে নিরাপত্তার চাদরে রাজধানী

আলোর জগত ডেস্কঃ সারাদেশে ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে শনিবার (১ আগস্ট)। ঈদুল আজহার নামাজ ও জমায়েতে নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে রাজধানীতে কঠোর নিরাপত্তা বলয় তৈরি করেছে পুলিশ ও র‌্যাব। রাজধানীর নিরাপত্তায় মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ, বাড়ানো হয়েছে চেকপোস্ট ও টহল। গুরুত্বপূর্ণ সরকারি স্থাপনাসহ সব স্থানে বাড়ানো হয়েছে গোয়েন্দা নজরদারি।ফাঁকা রাজধানীর নিরাপত্তায় মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ, বাড়ানো হয়েছে চেকপোস্ট ও টহল।

রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ স্থানে চেকপোস্ট বসিয়ে সন্দেহভাজন ব্যক্তি ও গাড়ি তল্লাশি করছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। গুলশান ও বারিধারার সব দূতাবাস এবং সংলগ্ন সড়কে থাকছে বাড়তি গোয়েন্দা নজরদারি। পুলিশ বলছে, কোরবানির ঈদ ও শোকাবহ আগস্ট সামনে রেখে সম্ভাব্য জঙ্গি হামলার আশঙ্কায় ইতোমধ্যে পুলিশের সব ইউনিটকে সতর্ক থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এ কারণেই রাজধানীতে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

পুলিশ সদরদফতর বলছে, প্রতিবছরের মতো এবারও রাজধানীর ঈদের জামাতকে ঘিরে নেয়া হয়েছে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা। ঈদের ছুটিতে আবাসিক ও বাণিজ্যিক এলাকায় অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড প্রতিরোধের লক্ষ্যে রাজধানীতে মোবাইল পেট্রল, ফুট পেট্রল ও চেকপোস্ট বসিয়ে নিরাপত্তা বলয় তৈরি করেছে পুলিশ ও র‌্যাব। নিরাপত্তার বিষয়ে পুলিশ সদরদফতরের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি-মিডিয়া অ্যান্ড পিআর) সোহেল রানা জাগো নিউজকে বলেন, যদিও করোনা সংক্রমণরোধে এবার ঈদে বাড়ি যাওয়ার ব্যাপারে নাগরিকদের আমরা নিরুৎসাহিত করছি, তারপরও বরাবরের মতো এবারও হয়তো কেউ কেউ শহর থেকে গ্রামের বাড়িতে ঈদ করতে যেতে পারেন। এ সময়ে শহরের বাসাবাড়ি ফাঁকা পেয়ে চুরি-ডাকাতি যাতে বেড়ে না যায় তার জন্য নগর পুলিশের সবকটি ইউনিটকে প্রস্তুত থাকতে নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে। এক্ষেত্রেও পোশাকে টহল পুলিশের পাশাপাশি সাদা পোশাকে পুলিশ মোতায়েন রেখে নগরের প্রতিটি এলাকায় নজরদারি বাড়ানোর জন্য নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মো. ওয়ালিদ হোসেন বলেন, ঈদুল আজহা উপলক্ষে রাজধানীর সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য ডিএমপির পক্ষ থেকে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা রয়েছে। সকল বিষয় মাথায় রেখে পুলিশের সকল ইউনিটের সদস্য সবখানে কঠোর নজরদারি রাখছে।

তিনি বলেন, ঈদ-কেন্দ্রিক বিভিন্ন পশুর হাট এবং বাস, রেল ও লঞ্চ টার্মিনালে থাকছে পুলিশের বিশেষ নজরদারি। সেখানে কেউ যাতে অজ্ঞানপার্টি-মলমপার্টি বা ছিনতাইয়ের শিকার না হয়, সে জন্য পোশাকের পাশাপাশি সাদা পোশাকেও গোয়েন্দা নজরদারি থাকছে।

নিরাপত্তার বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের মহাপরিচালক (ডিজি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন জানান, ঈদের সময় বাসাবাড়ি, ব্যাংক-মার্কেটসহ বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠানে চুরি-ডাকাতির আশঙ্কা থাকে। তাই বিশেষ বিশেষ এলাকায় র‌্যাবের নিয়মিত টহল বাড়ানো হয়েছে। ছুটির সময় র‌্যাবের উপস্থিতি দৃশ্যমান থাকবে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Dainikalorjagat.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com