ঢাকা ০৭:১০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম :

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত পরিচালক সাইদুল আনাম টুটুল আর নেই

ফাইল ছবি

বিনোদন ডেস্ক :  নির্মাতা সাইদুল আনাম টুটুল আর নেই(ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।মৃত্যুকালে সাইদুল আনাম টুটুলের বয়স হয়েছিল ৬৮ বছর। তিনি স্ত্রী ও দুই মেয়ে রেখে গেছেন। আজ মঙ্গলবার বেলা ৩টা ১০ মিনিটে রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালে তিনি শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, তার দুই মেয়ে ঐশী আনাম ও অমৃতা আনাম এখন যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী। গতকাল সোমবার বড় মেয়ে ঐশী আনাম দেশে ফিরেছেন। আগামীকাল বুধবার ছোট মেয়ে অমৃতা আনাম দেশে ফেরার পর সাইদুল আনাম টুটুলকে দাফন করা হবে।

গত ১৫ ডিসেম্বর শনিবার দিবাগত রাত ৩টায় গুণী এই নির্মাতা হার্ট অ্যাটাক করেন। পরে তাকে নিয়ে যাওয়া হয় ধানমন্ডির ল্যাবএইড হাসপাতালে। শারীরিক অবস্থা খারাপ দেখে ল্যাবএইডের ডাক্তার মাহবুবুর রহমান তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখার পরামর্শ দেন। চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন তার ফুসফুসে পানি জমেছে। নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছিলো। তার কিডনিতেও সমস্যা ছিলো।

সোমবার রাতে তার লাইফ সাপোর্ট খুলে দেয়া হয়। কিন্তু আজ মঙ্গলবার (১৮ ডিসেম্বর) সকালে তার হার্ট অ্যাটাক হলে অবস্থা আরও গুরুতর হয়ে পড়ে। আবারও তাকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়। কিন্তু সব চেষ্টাকে ব্যর্থ করে দিয়ে পৃথিবীর মায়া কাটিয়ে পরপারে পাড়ি জমান এই নির্মাতা।

Tag :
আপলোডকারীর তথ্য

প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে চিকিৎসার চেক হস্তান্ত, সাবেক এম পি নুরুল আমিন রুহুল

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত পরিচালক সাইদুল আনাম টুটুল আর নেই

আপডেট টাইম : ০৮:৪৮:৩৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮

বিনোদন ডেস্ক :  নির্মাতা সাইদুল আনাম টুটুল আর নেই(ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।মৃত্যুকালে সাইদুল আনাম টুটুলের বয়স হয়েছিল ৬৮ বছর। তিনি স্ত্রী ও দুই মেয়ে রেখে গেছেন। আজ মঙ্গলবার বেলা ৩টা ১০ মিনিটে রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালে তিনি শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, তার দুই মেয়ে ঐশী আনাম ও অমৃতা আনাম এখন যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী। গতকাল সোমবার বড় মেয়ে ঐশী আনাম দেশে ফিরেছেন। আগামীকাল বুধবার ছোট মেয়ে অমৃতা আনাম দেশে ফেরার পর সাইদুল আনাম টুটুলকে দাফন করা হবে।

গত ১৫ ডিসেম্বর শনিবার দিবাগত রাত ৩টায় গুণী এই নির্মাতা হার্ট অ্যাটাক করেন। পরে তাকে নিয়ে যাওয়া হয় ধানমন্ডির ল্যাবএইড হাসপাতালে। শারীরিক অবস্থা খারাপ দেখে ল্যাবএইডের ডাক্তার মাহবুবুর রহমান তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখার পরামর্শ দেন। চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন তার ফুসফুসে পানি জমেছে। নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছিলো। তার কিডনিতেও সমস্যা ছিলো।

সোমবার রাতে তার লাইফ সাপোর্ট খুলে দেয়া হয়। কিন্তু আজ মঙ্গলবার (১৮ ডিসেম্বর) সকালে তার হার্ট অ্যাটাক হলে অবস্থা আরও গুরুতর হয়ে পড়ে। আবারও তাকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়। কিন্তু সব চেষ্টাকে ব্যর্থ করে দিয়ে পৃথিবীর মায়া কাটিয়ে পরপারে পাড়ি জমান এই নির্মাতা।