ঢাকা ১২:০৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম :

ভয়াবহ দাবানলে ক্যালিফোর্নিয়ায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৫

ফাইল ছবি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :   যুক্তরাষ্ট্রের অঙ্গরাজ্য ক্যালিফোর্নিয়ায় ভয়াবহ দাবানলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৫। শুক্রবার রয়টার্সের খবরে বলা হয় শুষ্ক আবহাওয়া ও ঝোড়ো বাতাসের কারণে বনাঞ্চল থেকে সৃষ্ট দাবানল দ্রুত দেশটির প্যারাডাইস শহরে তাণ্ডব চালাচ্ছে। দাবানলে হাসপাতাল ও কয়েকশ বাড়ি পুড়ে গেছে। ঘর ছাড়া হয়েছে হাজারো মানুষ।দাবানলে নিহতদের বেশীরভাগই প্যারাডাইস শহরের বাসিন্দা বলে জানানো হয়।

ক্যালিফোর্নিয়ার বন ও আগুন নির্বাপক বিভাগের মুখপাত্র স্কট ম্যাক্লিন বলেন, শহরটি ধ্বংস হয়ে গেছে, সবকিছু শেষ কিছুই আর বাকি নেই তেমন।

অগ্নি নির্বাপনের চেষ্টায় ফায়ার ফাইটাররা কাজ করছেন ইতিমধ্যে দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যে ভয়াবহ দাবানলের ঘটনায় বনবিভাগের দুর্বল ব্যবস্থাপনাকে দায়ী করেছেন।

এই ঘটনার পর গতকাল শনিবার ট্রাম্প টুইটারে লিখেছেন, বন বিভাগের দুর্বলতা ব্যতীত বনে এমন মারাত্মক দাহের কোনো কারণ নেই। বন ব্যবস্থাপনার জন্য প্রতি বছর বিলিয়ন ডলার ব্যয় করা হচ্ছে। অথচ এখানে জনজীবনে এমন ক্ষতি হলো। এর প্রতিকার হচ্ছে অর্থ বরাদ্দ বন্ধ করে দেয়া।

Tag :
আপলোডকারীর তথ্য

প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে চিকিৎসার চেক হস্তান্ত।

ভয়াবহ দাবানলে ক্যালিফোর্নিয়ায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৫

আপডেট টাইম : ০৫:৩৫:১৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১১ নভেম্বর ২০১৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :   যুক্তরাষ্ট্রের অঙ্গরাজ্য ক্যালিফোর্নিয়ায় ভয়াবহ দাবানলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৫। শুক্রবার রয়টার্সের খবরে বলা হয় শুষ্ক আবহাওয়া ও ঝোড়ো বাতাসের কারণে বনাঞ্চল থেকে সৃষ্ট দাবানল দ্রুত দেশটির প্যারাডাইস শহরে তাণ্ডব চালাচ্ছে। দাবানলে হাসপাতাল ও কয়েকশ বাড়ি পুড়ে গেছে। ঘর ছাড়া হয়েছে হাজারো মানুষ।দাবানলে নিহতদের বেশীরভাগই প্যারাডাইস শহরের বাসিন্দা বলে জানানো হয়।

ক্যালিফোর্নিয়ার বন ও আগুন নির্বাপক বিভাগের মুখপাত্র স্কট ম্যাক্লিন বলেন, শহরটি ধ্বংস হয়ে গেছে, সবকিছু শেষ কিছুই আর বাকি নেই তেমন।

অগ্নি নির্বাপনের চেষ্টায় ফায়ার ফাইটাররা কাজ করছেন ইতিমধ্যে দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যে ভয়াবহ দাবানলের ঘটনায় বনবিভাগের দুর্বল ব্যবস্থাপনাকে দায়ী করেছেন।

এই ঘটনার পর গতকাল শনিবার ট্রাম্প টুইটারে লিখেছেন, বন বিভাগের দুর্বলতা ব্যতীত বনে এমন মারাত্মক দাহের কোনো কারণ নেই। বন ব্যবস্থাপনার জন্য প্রতি বছর বিলিয়ন ডলার ব্যয় করা হচ্ছে। অথচ এখানে জনজীবনে এমন ক্ষতি হলো। এর প্রতিকার হচ্ছে অর্থ বরাদ্দ বন্ধ করে দেয়া।